নিজস্ব সংবাদদাতা :- গত একুশে জুলাই শ্যামনগর রবীন্দ্রভবনে সমাজ সংস্কৃতি ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে এবং ডঃ বিশ্বজিৎ পালের সহযোগীতায় অনুষ্ঠিত হয় জাতীয় নৃত্য উৎসব দ্বিতীয় পর্ব এবং সূচনা হয় জাতীয় কবিতা উৎসবের। রাজ্যের বিভিন্ন জেলা থেকে ত্রিশটি নৃত্যের দল এবং চোদ্দটি কবিতার দল অংশগ্রহন করে এই উৎসবে। সব থেকে বেশি শিল্পী অংশগ্রহন করে মালদা, নদীয়া, উত্তর ও দক্ষিন চব্বিশ পরগনা, হুগলি, হাওড়া, কোলকাতা থেকে। সব মিলিয়ে সাড়ে চারশ শিল্পী অংশগ্রহনের সুযোগ পায় তার মধ্যে ভাটপাড়ার থেকে ছটি দলে সত্তর জন অংশগ্রহন করে। পরিবেশিত হয় শাস্ত্রীয়, সৃজনশীল, লোকনৃত্য, রাবীন্দ্রিক ও নজরুল নৃত্য। কবিতা উৎসবে বিভিন্ন কবির কবিতার পাশাপাশি এককভাবে স্বরচিত কবিতা পাঠও অনুষ্ঠিত হয়। অতিথির আসন অলংকৃত করেন ভাটপাড়ার উপপ্রধান সোমনাথ তালুকদার, স্বনামধন্য নৃত্যশিল্পী গুরু প্রদীপ্ত নিয়োগী, জয়দীপ গুহ, সঙ্গীতা আইচ ভৌমিক, ব্যারাকপুর বি.এন.বোস হাসপাতালের সুপার ডঃ সুদীপ্ত ভট্টাচার্য, অভিনেতা পাবেল শাস্ত্রী সহ বিশিষ্ট জনেরা। সমাজ সংস্কৃতি ফাউন্ডেশনের সম্পাদক গৌতম পাল জানান এই উৎসবের মাধ্যমে স্বনামধন্য শিল্পী দের পাশাপাশি উদীয়মান প্রতিভাবান শিল্পীরা একই সাথে মঞ্চে প্রতিভার বিকাশ ঘটানোর সুযোগ পাচ্ছে ফলে তাদের উৎসাহ বাড়ছে। তিনি আরও বলেন, এরপর সেপ্টেম্বর ও অক্টোবর মাসে অনুষ্ঠিত হবে সমাজ সংস্কৃতি উৎসব যেখানে থাকছে অঙ্কন ও নৃত্য প্রতিযোগিতা এবং নতুন প্রজন্মের পরিচালকদের উৎসাহ প্রদানের লক্ষ্যে শর্ট ফিল্ম, মিউজিক ভিডিও, ডকুমেন্টারি ফেস্টিভ্যাল।