চঞ্চল মিস্তিরী, বাংলাদেশ প্রতিনিধি :-একমাত্র স্থায়ী পশুর হাটসহ আসে পাশের অস্থায়ী হাটগুলো কোরবানির পশুতে ভরপুর।
এখনও আসছে পশু। তবে চড়া দামের হাল ছাড়ছে না ব্যবসায়ীরা। শুক্রবার সাফা বাজারপশুর হাট ঘুরে দেখা গেছে ছোট বড় মাঝারি বিভিন্ন সাইজের সব পশু, ক্রেতাও রয়েছে পর্যাপ্ত।

বিক্রি তেমন একটা চোখে পড়ার মত না হলেও চলছে দর কষাকষি। ক্রেতারা বলছেন- শেষ সময় দাম কমতে পারে এবং অনেকেই তার অপেক্ষায় আছে। বিক্রেতারা বলছেন পশু খাদ্যের দাম উর্ধ গতি থাকার কারনে চড়া দামে বিক্রি করতে হচ্ছে। পশু হাট কমিটির সভাপতি মোহাম্মদ আলামিন ইসলাম তত্ত্বাবধানে ব্যাবসায়ীরাও থাকা ও খাওয়ার সুব্যবস্থা পেয়েছেন। মঠবারিয়া সিপন নামের এক গরু ব্যাবসায়ী বলছেন, আমার গরুটিই এ বাজারের সেরা গরু ছিল, তাই যথাযথ মুল্য পেয়েছি, আলহামদুলিল্লাহ। গরুটি আনুমানিক ১৫ মন গোস্তো হবে যার মুল্য ৭,০০০০০ টাকা পেয়েছি। বর্তমান বাজারে ৮০ কেজি গোস্তো হবে এরকম গরুর মূল্য হবে ৫০,০০০ টাকা। বর্তমানে এ বাজারে সর্বনিম্ন ৪৫,০০০ টাকা এবং সর্বোচ্চ ৭,০০০০০ টাকার গরু বিক্রি হয়েছে।