সানওয়ার হোসেন, দক্ষিণ ২৪ পরগণা :- রায়দিঘি থানার সুধীর হাট বাড়ি এক গৃহবধূকে চাকরির প্রতিশ্রুতি দিয়ে ধর্ষণের অভিযোগ উঠল রায়দিঘি থানার সিভিক ভলেন্টিয়ার এর বিরুদ্ধে। অবশেষে গ্রেপ্তার সিভিক ভলেন্টিয়ার দিনবন্ধু হালদার।

তাকে ডায়মন্ড হারবার আদালতে তোলা হলে আদালত তাকে চার দিনের পুলিশ হেফাজতের নির্দেশ দেয়। স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, রায়দিঘি থানার উত্তর লক্ষীনারায়নপুরের সুধীর হাট বাড়ি গৃহবধূর সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে মেলামেশা চলছিল ওই একই এলাকায় বাড়ি সিভিক ভলেন্টিয়ার দীনবন্ধু হালদারের সঙ্গে। গৃহবধূর স্বামী সাদাসিদে সরল প্রকৃতির লোক বলে জানা যায়। গৃহবধূকে তার স্বামী জিজ্ঞেস করলে সে বলত চাকরি করবে কয়েকদিনের মধ্যেই। চাকরি করার টোপ দিয়ে দিনের পর দিন তাকে ধর্ষণ করেছে বলে গৃহবধূ অভিযোগ করে রায়দিঘি থানায়। সেই অভিযোগের ভিত্তিতে গ্রেপ্তার করে রায়দিঘি থানার পুলিশ সিভিক ভলেন্টিয়ারকে। তবে ছেলের বাড়ির লোকের কাছ থেকে জানা যায়, দিনের-পর-দিন দু’জনের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক ছিল। দুজনেই পরকীয়ায় লিপ্ত ছিল। গৃহবধূর সিভিক ভলেন্টিয়ার কাছে প্রচুর টাকা পয়সাও নিয়েছে এখন দিতে অস্বীকার করায় দিনবন্ধুকে ফাঁসানো হয়েছে।