নিজস্ব সংবাদদাতা, উত্তর ২৪ পরগণাঃ- কিংস্টন – ল- কলেজ কর্তৃক অনুষ্ঠিত হয়ে গেল প্রথম সমাবর্তন অনুষ্ঠান । ২০০৪ সালে কিংস্টেন – ল – কলেজ পথচলা শুরু করলেও এই বছর খুবই আনন্দের ও উদ্দিপনার সাথে প্রথমবারের মতো সমাবর্তন অনুষ্ঠানের স্বপ্ন বাস্তবায়িত হল।  যা ২০১৩ থেকে শুরু হয়েছিলে। এই বছর একই সঙ্গে ২০১৩ – ১৯ সালের স্নাতক ছাত্র-ছাত্রীদের শংসাপত্র প্রদান করা হ’ল। মোট সাত বছরের সমস্ত সমাবর্তিত ছাত্রছাত্রীদের ৫৪৫ জনকে শংসাপত্র প্রদান করা হয়। সমাবর্তনে সভাপতিত্ব করেন পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ডঃ মহুয়া দাস এবং উপস্থিত ছিলেন কিংস্টন – এডুকেশনাল ইন্সটিটিউড এর কর্ণধার তথা সম্পাদিকা উমা ভট্টাচার্য এবং সভাপতি টিপম ভট্টাচার্য, একাডেমিক উপদেষ্টা ডঃ মনি শঙ্কর চক্রবর্তী এবং কলেজের  অধ্যক্ষ সুমন গুপ্ত শর্মা, এছাড়াও ছিলেন কলেজের সকল অধ্যাপক, অধ্যাপিকা ও অশিক্ষক বৃন্দ।

সন্ধ্যার এই সমাবর্তন অনুষ্ঠানে ছিলেন সাংসদ সৌগত রায়। বিধায়ক ও পশ্চিমবঙ্গ বার কাউন্সিলের জন্য চেয়ারম্যান অশোক দেব, কলিকাতা বিশ্ববিদ্যালয় (ডিন – ফ্যাকাল্টি অফ ল) অধ্যাপক ডঃ জে.কে.দাস, এন – উ.জে.এম ডঃ শম্ভু প্রসাদ চক্রবর্তী , বিধায়ক রফিকুল রহমান। পশ্চিমবঙ্গ বার কাউন্সিলের সদস্য রবীন্দ্রনাথ ভট্টাচার্য, খাদ্য মন্ত্রী রথীন ঘোষ, বিধায়ক নারায়ণ গোস্বামী।

স্নাতক স্তরের পর স্নাতকত্তর পর্বে ছাত্রছাত্রীদের শিখতে চাওয়ার ইচ্ছাকে বাঁচিয়ে রাখতে এবং শিক্ষার বিভিন্ন ক্ষেত্রে সমন্বয় গড়ে তোলার জন্য সমাবর্তনের এক উল্লেখ যোগ্য বিষয় এবং অতিথিদের হাত থেকে ছাত্রছাত্রীরা শংসাপত্র গ্রহণ করে তাদের মধ্যে এক আনন্দ ও অনুপ্রেরণার সঞ্চার হয়। সর্বপরি বলা যায় যে পড়াশুনার প্রতি মনোযোগ বৃদ্ধি ও সামাজিক ন্যায় কল্পে আইন সম্পর্কে সচেতনতা বৃদ্ধিতে আগামী দিনে এই সমস্ত ছাত্রছাত্রীদের এক ছাতার তলায় আসাও এই সমাবর্তনের অন্যতম উদ্দেশ্য ।