সনাতন গরাই,দুর্গাপুর :- কাঁকসার বিষ্ণুপুরের সুসংহত শিশু বিকাশ কেন্দ্র। যেখানে প্রায় ৬০-৭০জন শিশুর পড়াশোনার পাশাপাশি খাবার দেওয়া হয়।কিন্তু রান্নার ঘর বলতে খড়ের ছাউনি দরজা বলতে নেই,তাই সেখানে বসবাস করে শুকরেরা। রান্নার উনুনের পাশেই শুকরের ছানা। শুকরের মল মূত্র আর তার পাশেই উনুনের মধ্যে রান্না হচ্ছে শিশুদের খাবার। আর সেই খাবারই দেওয়া হচ্ছে শিশুদের।

এলাকার আদিবাসী মহিলাদের দাবি দীর্ঘদিন ধরে একই অবস্থায় পড়ে আছে এই অঙ্গনওয়াড়ির কেন্দ্রটি। মাঝে মধ্যে এই খাবার খেয়ে বাচ্চারা অসুস্থ হয়ে পড়ে। আদিবাসী মহিলারা জানাই কিন্তু কি আর করবো তবুও এই খাবার ই খাওয়াতে হয়।এই অবস্থা কি অপরমহল আগে জানত নাকি জানা সত্ত্বেও কোনো কাজ করেননি।

এবার গোপন সূত্র ধরে শিশু বিকাশকেন্দ্রে প্রবেশ করে সংবাদ মাধ্যম। শিশু বিকাশ কেন্দ্রর আধিকারিকরা জানান অপড়মহলে জানানো সত্ত্বেও কোনো কাজে আসে নি। এবার কি শিশুদের এই খাবার দেওয়ার কথা সম্প্রচার হতেই নড়েচড়ে বসবে প্রশাসন না কি একই অবস্থায় থেকে যাবে এখন সেটাই দেখার।