অলোক আচার্য, নিউ বারাকপুরঃ- জেলা জুড়ে বাড়ছে করোনা সংক্রমণ ও মৃত্যু। টিকা, অক্সিজেন, হাসপাতালে বেডের আকাল দেশজুডে। প্রতিদিনের আক্রান্তের সংখ্যা উত্তর ২৪ পরগনাকে টপকে ফের রাজ্যে শিখরে এখন কলকাতাই। ২৪ ঘন্টায় এখানে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন প্রায় চার হাজার (৩৯৮৯)মানুষ। এই সঙ্কটকালে রোগীর সংখ্যা বাড়লেও দৈনিক সংক্রমণের নিরিখে হাসপাতালের উপর বাড়ছে চাপ। উত্তর ২৪ পরগণা জেলার নিউ বারাকপুরে ৬০ বেডের সেফ হোম চালু রয়েছে পুরোদমে। ৪০ জন পুরুষ এবং ২০ জন মহিলা আলাদা সেফ হোমের ব্যবস্থা। রয়েছে আপৎকালীন জরুরি অক্সিজেন সিলিন্ডার তৎসহ পালস অক্সিমিটার সহ সমস্ত রকম ব্যবস্থা। খাবার দাবার চিকিৎসক থেকে স্বাস্থ্যকর্মী নার্স আয়া রয়েছেন সেফ হোমে।কোভিড রোগীরা পুরসভার সেফ হোমে পরিষেবা পেয়ে খুশি। কোন রকম অসুবিধা ২৪ ঘন্টায় পরিষেবা চালু রয়েছে সেফ হোমে।

পুরসভার তরফে ১০ টি অক্সিজেন কেনা হয়েছে। এখানে অক্সিজেন সিলিন্ডার কোন ঘাটতি নেই। রিফিলিং এর সমস্যা রয়েছে। করোনা আক্রান্তে সংখ্যা ১১০০জন। সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৯০০ জন মানুষ। পাশাপাশি ভ্যাকসিন টিকাকরণ ও চলছে কৃষ্টি প্রেক্ষাগৃহে।

প্রতিদিন সকালে পুরবাসীরা লাইনে দাঁড়িয়ে দ্বিতীয় ডোজ নিচ্ছেন। পুরসভার কোভিড টিম খুব সজাগ সতর্ক রয়েছে। মানুষ কে সচেতন করছেন কোভিড ভ্যাকসিন টিকাকরণে। শারীরিক দুরত্ব বজায় রেখে সকলেই মাস্ক পরে স্যানিটাইজার করে ৪৫ উর্ধ্বে বৃদ্ধ বৃদ্ধাদের দ্বিতীয় ডোজ টিকাকরণ দেওয়া চলছে বলে জানিয়েছেন পুরসভার নোডাল করোনা অফিসার দেব প্রসাদ রাহা।

পুরসভার প্রশাসক মন্ডলীর সদস্য প্রবীর সাহা জানান, কোভিড সংক্রমণ মোকাবিলায় আগামী শনিবার নিউ বারাকপুর পুরসভার ১৬নং ওয়ার্ডের শিবাজী সংঘে চার বেডের অক্সিজেন পার্লার চালু হবে। পরবর্তীতে বিভিন্ন ওয়ার্ডে বাড়বে। স্থানীয় বিধায়ক ও স্বাস্থ্য দফতরের প্রতিমন্ত্রী চন্দ্রিমা ভট্টাচার্যের ঐকান্তিক অনুপ্রেরণায় প্রচেষ্টায় নিউ বারাকপুরে দুয়ারে দুয়ারে অক্সিজেন পার্লার চালু হয়ে যাবে। নিউ বারাকপুর শহরে কোভিড মোকাবিলায় ৬০ বেডের সেফ হোমে পরিষেবা পেয়ে মানুষ খুশি।