কবিতাঃ- চিতা

🔸কবি – চঞ্চল মিস্তিরী🔸

নিশিত শ্মশানে অভাগিনী এক
শ্বেত বাস পরিহিতা
ভাবছি তাঁহার সিঁদুর মুছিয়া
কে জ্বালালো ওই চিতা।

ভগবান তুমি চাহিতে পারো কি
ওই দুটি নারী পানে
জানিনা তোমায় বাঁচাবে কে
যদি ওরা অভিশাপ হানে।

চিতার আগুন জ্বলবে শুধু
দাও দাও করিয়া
নিভে না কখনো না নিভিলে
জল ফেলিয়া।

কাঠের উপর কাঠ রাখিয়া
দিবে যে শ্মশানে চাপা
দেহ খানা তোর পুড়িয়ে তখন
হয়ে যাবে ছাপা।

শ্মশান ঘাটে নিভে যখন
সাদা কাপড় পড়াইয়া
কিছু ই যাবে না সংঙ্গে তোর
সবি যাবি ফেলাইয়া।।

দেহ খানা তোর পুড়িয়ে যখন
করিয়া ফেলিবে ছাই
এতো হিংসা অহংকার করিয়া কি হবে,
নাই তো কোন ঠাই।।

শ্মশান ঘাটে থাকবি রে
তুইতো একা পড়ে
দুদিন পড়ে কেউ তো আর
খোঁজ নিবে না তোরে।।

এতো সুন্দর মানব জনম
লইয়া কি লাভ
যার জন্য আসা ভবে
করলি না তা সিদ্ধিলাভ।।

প্রাণ পাখি তোর যখন যাবে
দেহ ছাড়িয়া
মাটির উপর রইবি পড়ে
নিরবে ঘুমাইয়া।।

চিতায় যখন দিবে মাটি
সবাই এক মুঠ করে
কেউ আর বলবে না যে
চলনা তুই ঘরে।।

কিছু সময় মায়ার বাঁধন
সবই ছলনা
যার জন্য আসা ভবে
তাকে ভুলো না।।