চঞ্চল মিস্তিরী, বাংলাদেশ :- জি এম সি সেন্টারের একটি ও ভিডিও স্টুডিও টাকা নিয়ে উধাও। লিমন মাহমুদ (২৪) পিতা আবুল কালাম, সাং দানাইল,থানা ও জেলা কিশোরগঞ্জ তিনি একজন গীতিকার, সুরকারওসিংগার । তার গান রেকর্ডিং করার জন্য কিছু দিন আগে একটি স্টুডিওতে ও ভিডিও গান বের করার জন্য জি এম সি সেন্টারের এটি একটি ইউটিউব চ্যানেলের সাথে (১৫০০০) পনেরো হাজার টাকায় চুক্তি বদ্ধ হয়ও ভিডিও গান নির্মান করার জন্য জি এম সি সেন্টার ইউটিউব চ্যানেল কে দেওয়া হয়। যার মধ্যে পাঁচ হাজার টাকা গত ১৪ অক্টোবর বিকাশের মাধ্যমে পেমেন্ট করা হয়। বাকি দশ হাজার টাকা কাজ শুরু করার পর পরিশোধ করার কথা হয় তাদের সাথে জি এম সি সেন্টার ইউটিউব চ্যানেলের সাথে। কিন্তু পাঁচ হাজার টাকা নেওয়ার পর ১৮ অক্টোবর তারিখ তার গান টি ভিডিও এর কাজটি করার কথা ছিলো। কিন্তু তার কাজটি না করে তাকে বিভিন্ন তারিখ দেওয়ার কথা বলতে থাকে। এমন ভাবে প্রায় তিন থেকে চার তারিখ শেষ হয়ে যায় তারপরও তার গান বের করে না। জি এম সি সেন্টার ইউটিউব চ্যানেল কাজ না করায় তাদেরকে ফোন দিলে তারা উলটো ভাবে গালি গালার্ছ করে। ও তাকে না চিনার ভাব করে। এবং তার ফোন নম্বর টা ব্লাকলিস্ট করে দেয় এবং সকল ধরনের যোগাযোগ বন্ধ করে দেয় জি এম সি সেন্টার ইউটিউব চ্যানেল। তবে জি এম সি সেন্টার ইউটিউব চ্যানেলের স্টুডিওর সাথে (WhatsApp) চ্যাটিং মোবাইলে সকল কথোপকথন রেকর্ড করা আছে। ও জাতীয় জরুরি সেবা (৯৯৯) নম্বরএ ফোন দেওয়ার পর তারা জানান সঠিক বিচার পাবে লিমন মাহমুদ। এবং জি এম সি সেন্টার ইউটিউব চ্যানেলের বিরুদ্ধে থানায় সাধারণ ডায়েরি করা হয়। জি এম সি সেন্টার ইউটিউব চ্যানেলের প্রতারক চক্রের মালিক তার নাম সোহান।