অলোক আচার্য, বিধাননগরঃ- রবিবার জনপ্রিয় বিধায়ক মানিকতলার প্রাণপুরুষ প্রয়াত মন্ত্রী সাধন পান্ডের মূর্তির আবরণ উন্মোচন করা হল। উল্টোডাঙা বিবেকানন্দ ক্লাব আয়োজিত সংঘ প্রাঙ্গণে এদিন সাধন পান্ডের মূর্তি উন্মোচন করলেন সাংসদ সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়। মানিকতলা বিধানসভা কেন্দ্রের ১৩ নম্বর ওয়ার্ডে। উপস্থিত ছিলেন সাংসদ ডাঃ শান্তনু সেন, বিধায়ক অতীন ঘোষ, প্রয়াত মন্ত্রীর সহধর্মিনী সুপ্তি পান্ডে, সুকন্যা শ্রেয়া পান্ডে, বিধাননগর কর্পোরেশনে চেয়ারম্যান সব্যসাচী দত্ত, ১৩নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর আইনজীবী অনিন্দ্য কিশোর রাউত, শান্তিরঞ্জন কুন্ডু, সায়ন দেব চট্টোপাধ্যায়, কৃষ্ণ প্রতাপ সিং, অধ্যাপক ড: রাজর্ষি দাস, অধ্যাপক ড: অচিন্ত্য বিশ্বাস, দীপক দাস প্রমুখ।

সাংসদ সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, কলকাতা সফরে অনেক রাজনৈতিক নেতা কর্মীরা বিভিন্ন সময়ে পরলোকগমন করেছেন কিন্তু সাধন পান্ডের পরলোকগমনে নিমতলা শ্মশান ঘাট পর্যন্ত রাস্তার দু ধারে স্বতঃস্ফূর্ত মানুষের চোখের জলে ব্যথা বেদনা অনুভব দেখে বোঝা যায় কত কাছের লোক ছিলেন সাধন পান্ডে। মৃত্যুর কোলে এভাবে ঢলে পড়বে ভাবা যায় নি। অসুস্থ ছিল। বুঝতে দিত না। এগিয়ে চলতে হবে। মৃত্যু আসে একদিন হঠাৎই। ব্যক্তিগত জীবনে ভালোবাসার সম্পর্ক ছিল দীর্ঘদিনের। মানবিক সম্পর্ক। কাজ করা। দলকে সমন্বয় করে উচ্চ পর্যায়ে নিয়ে যাওয়া স্বপ্ন ছিল। সকলের মনি কোঠায় সাধন পান্ডের অনুভূতি দিয়ে চলে গেলেন।

সাংসদ আবেগপ্রবন হয়ে বলেন, সাধন পান্ডের স্বপ্ন ছিল বিজেপি কে শাসন ক্ষমতা থেকে সরিয়ে দেওয়া হবে। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে প্রধান মন্ত্রী হিসেবে দেখতে পাবেন। স্বপ্ন কে বাস্তবায়িত করতে সকলে সাযুজ্য রেখে এগিয়ে চললে সুফল আসবে। পারিবারিক জীবনে সাথে দায়িত্ব পালনে কখনও কার্পণ্য বোধ করেন নি। বড় কথা। পারত নিজে করত।

এদিন সাধন পান্ডের কন্যা শ্রেয়া পান্ডে বিনামূল্যে বিবাহ রেজিস্ট্রেশন বন্ড চালু করলেন। মানিকতলা বিধানসভা অন্তর্গত গরীব অভাবী পরিবারের ছেলে মেয়েদের বিবাহ রেজিস্ট্রেশন ফিস মুকুব করে বিনামূল্যে চালুর উদ্ধোধন করা হয় এদিন। এরপর উল্টোডাঙা বিবেকানন্দ ক্লাব প্রাঙ্গণে সাধন পান্ডের মূর্তি উন্মোচন করে মাল্যদান করে শ্রদ্ধা জানান সাংসদ সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়, ডাঃ শান্তনু সেন, কলকাতা কর্পোরেশন ডেপুটি মেয়র অতীন ঘোষ, সুপ্তি পান্ডে, শ্রেয়া পান্ডে সহ বিশিষ্ট জনেরা।

সমগ্র অনুষ্ঠানটি পরিচালনা ও সঞ্চালনার দায়িত্বে ছিলেন ১৩নং ওয়ার্ডে তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি সমাজসেবী রবি পাল। সাধন পান্ডের মূর্তি উন্মোচন ঘিরে এলাকার মানুষের উচ্ছ্বাস ছিল চোখে পড়ার মতো।