বাইজিদ মন্ডল, ডায়মন্ড হারবারঃ- সামনে লোকসভা নির্বাচন কে সামনে রেখে প্রত্যেক রাজনৈতিক তাদের দলকে প্রচারের মাধ্যমে সাধারণ মানুষের কাছে তুলে ধরার চেষ্টা করছে। কেন্দ্রের মোদি সরকারের পক্ষ থেকে যে প্রচার চলছে, তারই পাল্টা চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে ছবি সহ লিখিত ভাবে পুস্তিকা আকারে পৈলান দৌলতপুর যুব সংঘের মাঠে শনিবার বিকেলে ডায়মন্ড হারবার সাংসদ তথা সর্বভারতীয় তৃণমূল যুব কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় নিজ লোকসভা কেন্দ্রে বিগত ৮ বছরের উন্নয়নের খতিয়ান সম্বলিত পুস্তিকা প্রকাশ অনুষ্ঠান “নিঃশব্দ বিপ্লব”-২০২২ অনুষ্ঠিত হল। তার পাশাপাশি ডায়মন্ড হারবার এলাকার সাধারণ মানুষের সুবিধার জন্য সাংসদ অভিষেকের ঐকান্ত প্রচেষ্টায় চালু করা হল নতুন হেল্পলাইন নম্বর- ৭৮৮৭৭৭৮৮৭৭ এই নম্বরে ফোন করে নিজেদের অভাব অভিযোগ জানাতে পারবেন এলাকার বাসিন্দারা।

পরিষেবার নাম দেওয়া হয়েছে এক ডাকে অভিষেক, অর্থাৎ হাত বাড়ালেই সাংসদকে পাবেন সংশ্লিষ্ট সংসদীয় এলাকার বাসিন্দারা। সাধারণত ভোটে জেতার পর এলাকায় জনপ্রতিনিধিদের সময়ে তেমনটা দেখা পাওয়া যায় না বলেও কিছু কিছু মানুষ অভিযোগ তোলেন। তারই পরিপ্রেক্ষিতে এই পরিষেবা চালু করে অভিষেক কার্যত প্রমাণ করে দিলেন, শুধুমাত্র নির্বাচনী রাজনীতি তিনি করেন না। বরং সাধারণ মানুষের পাশে দাঁড়াতেই ভালবাসেন এই জননেতা, এমনটাই বলছে তাঁর সংসদীয় এলাকার বাসিন্দারা।

সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় ছাড়াও অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ডা:হা: লোকসভার মধ্যে সকল নেতৃত্ব থেকে শুরু করে আরও অন্যান্য বিশিষ্ঠ ব্যক্তিবর্গ। সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের ৮বছরের উন্নয়নের পুস্তিকা প্রকাশ এর আগে পর্যন্ত ডায়মন্ড হারবার লোকসভা জুড়ে প্রতিটি ব্লকে ও অঞ্চলের বুথে বুথে চলেছিল নিঃশব্দ বিপ্লবের সমর্থনে দেওয়াল লিখন ও ফেস্টুন এর মাধ্যমে জোরদার প্রচার।

বিভিন্ন সময়ে সাংসদ অভিষেক বিজেপি সরকারকে নিশানা করে বলে থাকেন পুস্তিকা আকারে প্রকাশ করুক তারা কি কাজ করেছে এবং মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকার তারা পুস্তিকা আকারে প্রকাশ করে মানুষের কাছে তুলে ধরবে তারা কি কাজ করেছে। সাধারণ মানুষ দুটোকে বিচার করে দেখবে কোন সরকার মানুষের সুবিধার্তে কতটা কাজ করেছে। তারই মাঝে সেটা বাস্তবে রূপ দিতে ডা:হা: লোকসভার সাংসদ অভিষেক বন্দোপাধ্যায় তারই কেন্দ্রে ৮বছরে সাধারণ মানুষের জন্য কি কি উন্নয়ন করেছে সে গুলো লিখিত ভাবে ছবি সহ পুস্তিকা আকারে প্রকাশিত করেন আজ। এই হেল্পলাইন পরিষেবা চালু হওয়ায় খুশি সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের লোকসভার সাধারণ মানুষ।