সুমন পাএ, ঝাড়গ্রামঃ- উচ্চ মাধ্যমিকের ফল প্রকাশের পর শুক্রবার স্কুলে মার্কশিট নিতে এসে বিপত্তি। ঝাড়গ্রাম ব্লকের সেবায়তন বিদ্যায়তন উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের বহু ছাত্রছাত্রী মার্কশিট হাতে পেয়ে অকৃতকার্য হওয়ায় কান্নায় ভেঙে পরে। অভিভাবকরাও তাদের সন্তানদের এই ফলাফলে ক্ষুব্ধ। এই বিদ্যালয়ের ১৪ জন পরীক্ষার্থীর ক্ষেত্রে এরকম ঘটনা ঘটেছে বলে জেলা বিদ্যালয় দফতর সূত্রে জানা গিয়েছে ।

যদিও বিদ্যালয়ের ওই পরীক্ষার্থীদের দাবি , বৃহস্পতিবার ফলাফল ঘােষণার পর ওই দিনই তারা নির্দিষ্ট পাের্টালে দেখেছে পাস করেছে। কিন্তু স্কুলে মার্কশিট হাতে পেয়ে দেখে তারা অনুত্তীর্ণ । অনুষ্কা শর্মা নামে এক পরীক্ষার্থী জানায়, “পাস নম্বর থাকা সত্বেও ফেল করিয়ে দিয়েছে , টোটাল কিছুই দেখায়নি। স্কুলের রেজাল্টে পাস করা সত্ত্বেও ফেল দেখাচ্ছে।”

ক্ষুব্ধ এক অভিভাবক তাপস সাহা জানান, “পাের্টালে বিদ্যালয়ের সঙ্গে যােগাযােগ করতে বলা হয়েছে। সব বিষয়ে সবগুলােতে পাস করেছে আমার মেয়ে। তাও ওকে ফেল করিয়ে দিয়েছে । ওদের ভবিষ্যৎ শেষ হয়ে যাবে । প্রশাসনের কাছে জানতে চাইছি কি ভাবে এটা হল। “

যদিও এই বিষয়ে ঝাড়গ্রাম জেলা বিদ্যালয় পরিদর্শক ( মাধ্যমিক ) সঞ্জয় চট্টোপাধ্যায় বলেন , “ মাধ্যমিকে ওই ছাত্রছাত্রীরা আশানুরুপ ফলাফল করতে পারেনি । এবার উচ্চমাধ্যমিকে থিওরিতে পাঁচটি বিষয়ে ২৪ পেতেই হবে । তারা ওই নম্বর পায় নি । ফলে অকৃতকার্য হয়েছে । ” ওই বিদ্যালয়ের সহ শিক্ষক উষা রঞ্জন মাইতি বলেন , “ এই বিষয়টি আমাদের হাতে নেই আমরা কাউন্সিলে খোঁজ খবর নেব । কি টেকনিকে রেজাল্ট হয়েছে , কি পদ্ধতিতে ক্যালকুলেশন হয়েছে তা আমরা জানি না । এই করােনা পরিস্থিতিতে সবার পাস করে যাওয়া উচিত ছিল। এদিকে এই বিষয়ে রাজ্য বন দফতরের রাষ্টরমন্ত্রী বীরবাহা হাঁসদা বলেন , “ আমি বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলব। এবং তারা যাতে কাউন্সিলে দ্রুত যােগাযােগ করেন তার জন্য বলব।