নিজস্ব সংবাদদাতা :- আমডাঙায় রাতে তৃণমূল কর্মীর ওপর হামলার ঘটনায় দোষীদের গ্রেফতারের দাবিতে অবরোধে কর্মী- সমর্থকরা, পরে পুলিশের আশ্বাসে অবরোধ উঠে যায়। উত্তর ২৪ পরগণার আমডাঙায় গতকাল রাতে তৃণমূল কর্মী শেখ ফরিদকে লক্ষ্য করে গুলি চালিয়ে পালায় দুষ্কৃতীরা। গুলি লক্ষ্যভ্রষ্ট হ‌ওয়ায় অল্পের জোরে প্রানে বাঁচেন ওই তৃণমূল কর্মী। এদিকে দুষ্কৃতীদের হাত থেকে পালাতে গিয়ে পরে গিয়ে আহত হয়েছেন শেখ ফরিদ। তাকে আমডাঙা গ্রামীন হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করা হয়েছে। ঘটনার প্রতিবাদে আজ সকালে আমডাঙার ৩৪ নম্বর জাতীয় সড়কের আওয়াল সিদ্ধি মোড়ে অবরোধ করেন তৃণমূল কর্মীর সমর্থকের। সকাল দশটা থেকে অবরোধ শুরু হয়।এর জেরে জাতীয় সড়কে যান চলাচল থমকে যায়। খবর পেয়ে ঘটনাস্থানে ছুটে আসে আমডাঙা থানার পুলিশ। পুলিশ এসে অবরোধ তুলে নেওয়ার অনুরোধ জানায়। এদিকে অবরোধ কারীদের দাবি এই ঘটনার মূল অভিযুক্ত আব্দুল হামিদ ওরফে খোকনকে গ্রেপ্তার না করা হলে তারা অবরোধ চালিয়ে যাবে। পরে প্রায় এক ঘন্টা অবরোধ চলার পর অভিযুক্তকে গ্রেফতারের আশ্বাস দেওয়া হলে অবরোধকারীরা আন্দোলন প্রত্যাহার করে। অবরোধ উঠলেও জাতীয় সড়কে যান চলাচল স্বাভাবিক হতে বেশ খানিকটা সময় লাগে। স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, গতকাল রাতে আওয়াল সিদ্ধির হাটখোলা মোড় দিয়ে বাড়ি ফিরছিলেন তৃণমূল কর্মী শেখ ফরিদ। তখন বাইকে করে এসে আব্দুল হামিদ ও তাঁর দলবল ওই শেখ ফরিদ পথ আটকায়। তারপরই দু-পক্ষের মধ্যে বচসা শুরু হয়। অভিযোগ, বচসা চলাকালীন ওই তৃণমূল কর্মীকে লক্ষ্য করে গুলি চালায় দুষ্কৃতীরা। কিন্তু দুষ্কৃতীদের ছোড়া গুলি লক্ষ্যভ্রষ্ট হ‌য়। শেখ ফরিদ পালাতে গিয়ে রাস্তায় পরে গিয়ে আহত হন। এই ঘটনায় চিৎকার চেঁচামেচিতে দুষ্কৃতীরা বাইক নিয়ে হাবড়া-নৈহাটি রোড ধরে পালিয়ে যায়! যদিও পুলিশ জানিয়েছে, গুলি চালানোর কোনো ঘটনা ঘটেছে কিনা তা পরিষ্কার নয়। তবে সম্পূর্ণ ঘটনাটির তদন্ত শুরু হয়েছে।