সানওয়ার হোসেন, দক্ষিণ ২৪ পরগনা :- নির্বাচনের মুখে খেয়াঘাট থেকে গ্রেপ্তার ভিন্ন জেলার পাঁচ সশস্ত্র দুষ্কৃতি। পলাতক আরও দুজন। আগামী ১২ তারিখে মুখ্যমন্ত্রীর সভার আগে অন্য জেলার পাঁচ সশস্ত্র দুষ্কৃতীকে গ্রেপ্তার করল পুলিশ। পলাতক আরও দুই। ধৃতদের কাছ থেকে উদ্ধার হয়েছে বন্দুক ও গুলি। ধৃতদের জিজ্ঞাসাবাদ করে জানার চেষ্টা চলছে ডাকাতির উদ্দেশ্য নাকি ভোটের রাজনৈতিক সংঘর্ষের উদ্দেশ্য তারা জড়ো হয়েছিল। ধৃতদের মধ্যে আরাবুল মন্ডল ও সুজাউদ্দিন মন্ডলের বাড়ি উত্তর ২৪ পরগনার জেলার গোবরডাঙ্গা থানা এলাকায়। অপর তিন দুষ্কৃতি ঝন্টু শেখ, রাজব আলি ও আবু সামার বাড়ি মুর্শিদাবাদ জেলার ভগবানগোলা থানা এলাকায়। পুলিশ সূত্রে খবর, বারুইপুর পুলিশ জেলার স্পেশাল অপারেশন গ্রুপের কাছে গোপন সূত্রে খবর আসে কিছু দুষ্কৃতী গভীর রাতে নদী পেরিয়ে বাসন্তী এলাকায় ঢুকবে। সেই খবর মতো এসওজিও বাসন্তী থানার পুলিশ ওত পেতে বসে থাকে। সাত দুষ্কৃতি বাসন্তী থানা এলাকার গড়ানবোস খেয়াঘাটে আসে। তখন একটি নৌকা অপেক্ষা করছিল। এমন সময় লুকিয়ে থাকা পুলিশের এক ইনফরমারের ফোন বেজে ওঠে। সাথে সাথে দুষ্কৃতিরা সজাগ হয়ে যায়। তারা পালাবার চেষ্টা করে। পুলিশ কর্মীরা ঝাঁপিয়ে পড়ে পালানোর চেষ্টায় থাকা দুষ্কৃতীদের উপর। পাঁচ দুষ্কৃতীকে ধরে ফেলে। দুইজন নদীতে ঝাঁপ দেয়। ধৃতদের কাছ থেকে উদ্ধার হয়েছে চারটি সিঙ্গেল ব্যারেল লং পাইপগান, একটি ছোট পাইপগান ও ম্যাগাজিন সহ একটি নাইন এমএম পিস্তল। এছাড়াও আট রাউন্ড তাজা কার্তুজ ও দুটি মোবাইল ফোন।